ঢাকা ১১:৩৮ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০২৪, ৪ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
Logo ময়মনসিংহে মানসিক রোগী রাজিয়া খাতুুন হত্যার রহস্য উদঘাটন ০৩ জন গ্রেফতার Logo শ্রীমঙ্গলে অর্ধশতাধিক ছিন্নমূলে ঈদ উপহার দিলো ওয়ার্ক ফর হিউম্যানিটি Logo ফাজিলপুরে হাফেজিয়া মাদ্রাসার ছাত্রদের জন্য মুসলিম এইড বাংলাদেশ (MAB) এর কুরবানি কর্মসূচী-২০২৪ Logo শুকনো জায়গার অভাবে, সিলেটে অনেকেই কোরবানী দিতে পারছেন না Logo পুলিশ পরিচয়ে ছিনতায়ের অভিযোগে সাবেক সেনা সদস্য গ্রেফতার Logo কালিয়াকৈরে ডাঃ ডালেম চন্দ্র বর্মনের স্মরণসভা অনুষ্ঠিত Logo ঈদের আনন্দে প্রবাসীরা কতটুকু হাসি খুশি থাকে Logo ঈদুল আযাহার নামাজ আদায় চকশৈল্যা বাজার ঈদগাহ মাঠে। Logo বিরামপুরে সৌদির সাথে মিল রেখে ১৫টি গ্রামের পরিবারে ঈদুল আজহা উদযাপন Logo শেরপুরে পবিত্র ঈদুল আযহার উপলক্ষে শুভেচ্ছা ও আর্থিক সহায়তা দিলেন ছানুয়ার হোসেন ছানু এমপি

নড়াইলে কোরবানির পশুর হাটগুলো জমে উঠেছে

উজ্জ্বল রায়, জেলা প্রতিনিধি নড়াইল থেকে:
  • আপডেট সময় : ০১:৫০:৪৬ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২৮ জুন ২০২৩ ২০৩ বার পড়া হয়েছে

উজ্জ্বল রায়, জেলা প্রতিনিধি নড়াইল থেকে:

নড়াইলে কোরবানির পশুর হাটগুলো জমে উঠেছে। জেলার তিনটি উপজেলার হাটে প্রতিদিন হাজার হাজার পশু কেনা-বেচা চলছে। হাটের বাইরেও চলছে কেনা-বেচা। এতে হাসি ফুটেছে পশু বিক্রেতাদের মুখে। সাধ ও সাধ্যের সমন্বয় ঘটিয়ে কোরবানির জন্য হাটের সেরা পশুটিই কিনতে চাইছেন সবাই। হাটে দেশি জাতের মাঝারি গরুর চাহিদাই বেশি। উজ্জ্বল রায়, জেলা প্রতিনিধি নড়াইল থেকে জানান, সরেজমিন ঘুরে জেলার মাইজপাড়া হাট, নাকসী বাজার, লোহাগড়া বাজার, শিয়রবর, লাহুড়িয়া, দিঘলিয়া, পশুর হাটে সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, প্রতিটি পশুর হাটে পচুর পরিমাণ গরু-ছাগল, মহিষ বিক্রির জন্য হাটে নিয়ে আসছেন বিক্রেতারা।

বিক্রেতারা বলেন, গত বছরের চেয়ে এ বছর দেশীয় পদ্ধতিতে মোটাতাজা করতে বেশি টাকা খরচ হয়েছে। তাই কোরবানির হাটে পশুর দাম একটু বেশি রয়েছে। কিন্তু আমরা যদি গরুর দাম দেড় লাখ চাই তাহলে ক্রেতারা তার দাম বলেন ৮০ থেকে ৯০ হাজার আর যদি এক লাখ চাই তাহলে ক্রেতারা বলেন ৬০ থেকে ৭০ হাজার। কোনো কোনো ক্রেতা দাম বেশি দিয়ে কিনে নেন। আবার কিছু ক্রেতা দাম শুনে চলে যান। পশু বিক্রয় করতে না পারলে তাদের অনেক লোকসান গুনতে হবে বলে জানান। এ নিয়ে দুশ্চিন্তায় রয়েছেন তারা।

নড়াইলের পুলিশ সুপার মোসা: সাদিরা খাতুন বলেন, পবিত্র ঈদ-উল-আযহা উপলক্ষে কোরবানির পশুর হাটে নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করতে অস্থায়ী কন্ট্রোলরুম স্থাপন করা হয়েছে। পশুর হাটে চাঁদাবাজিসহ সব ধরনের অপরাধ নিয়ন্ত্রণ ও সাধারণ জনগণ যাতে নির্বিঘেœ কোরবানির জন্য পশু ক্রয় ও বিক্রয় করতে পারে সে জন্য নজরদারি বাড়াতে পুলিশ, ব্যাংক কর্মকর্তা ও ইজারাদারদের সমন্বয়ে অস্থায়ী কন্ট্রোলরুম স্থাপন করা হয়েছে।
এছাড়া গরু ও ছাগল সুস্থ আছে কি না তা যাচাই করার জন্য কন্ট্রোলরুমে পশু ডাক্তার উপস্থিত থাকার বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়েছে। জাল টাকার বিস্তার রোধে জাল টাকা শনাক্তকরণের মেশিন রাখা হয়েছে। পশুরহাটে মানুষের জানমালের নিরাপত্তা, টাকা ছিনতাই রোধ, মলম ও অজ্ঞান পার্টির তৎপরতা নিয়ন্ত্রণের লক্ষে ডিবির টহল টিম থাকবে। এছাড়া সাদা পোশাকে পুলিশ সার্বক্ষণিক নজরদারি করবে।

নড়াইল জেলা প্রাণিসম্পদ অফিসের তথ্য অনুযায়ী জেলায় এবার কোরবানিযোগ্য গবাদি পশু মজুদ আছে ৫৪ হাজার ৪৯০টি। কোরবানির জন্য পশুর চাহিদা রয়েছে ৩২ হাজার ১৪৫টি। অর্থাৎ ২২ হাজার ৭৭৫টি গবাদি পশু উদ্বৃত্ত রয়েছে। এবারের কোরবানিতে নড়াইল জেলায় তিনটি উপজেলা নড়াইল সদর, লোহাগড়া ও কালিয়ায় ৪ হাজার ৫৯৯টি খামারে কৃষকের মজুদ থাকা গবাদি পশুর মধ্যে ষাঁড় রয়েছে ১২ হাজার ৯৫৮টি, বলদ ২ হাজার ৫৭১টি এবং গাভী রয়েছে ৪ হাজার ১৬৯টি। মোট গরুর সংখ্যা ১৯হাজার ৬৯৮টি। এছাড়া ছাগল এবং ভেড়া রয়েছে ৩৫ হাজার ১৯২টি। যার মধ্যে ছাগল ৩৫ হাজার ১০৩টি এবং ৮৯টি ভেড়া রয়েছে।

ট্যাগস :
Translate »

নড়াইলে কোরবানির পশুর হাটগুলো জমে উঠেছে

আপডেট সময় : ০১:৫০:৪৬ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২৮ জুন ২০২৩

উজ্জ্বল রায়, জেলা প্রতিনিধি নড়াইল থেকে:

নড়াইলে কোরবানির পশুর হাটগুলো জমে উঠেছে। জেলার তিনটি উপজেলার হাটে প্রতিদিন হাজার হাজার পশু কেনা-বেচা চলছে। হাটের বাইরেও চলছে কেনা-বেচা। এতে হাসি ফুটেছে পশু বিক্রেতাদের মুখে। সাধ ও সাধ্যের সমন্বয় ঘটিয়ে কোরবানির জন্য হাটের সেরা পশুটিই কিনতে চাইছেন সবাই। হাটে দেশি জাতের মাঝারি গরুর চাহিদাই বেশি। উজ্জ্বল রায়, জেলা প্রতিনিধি নড়াইল থেকে জানান, সরেজমিন ঘুরে জেলার মাইজপাড়া হাট, নাকসী বাজার, লোহাগড়া বাজার, শিয়রবর, লাহুড়িয়া, দিঘলিয়া, পশুর হাটে সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, প্রতিটি পশুর হাটে পচুর পরিমাণ গরু-ছাগল, মহিষ বিক্রির জন্য হাটে নিয়ে আসছেন বিক্রেতারা।

বিক্রেতারা বলেন, গত বছরের চেয়ে এ বছর দেশীয় পদ্ধতিতে মোটাতাজা করতে বেশি টাকা খরচ হয়েছে। তাই কোরবানির হাটে পশুর দাম একটু বেশি রয়েছে। কিন্তু আমরা যদি গরুর দাম দেড় লাখ চাই তাহলে ক্রেতারা তার দাম বলেন ৮০ থেকে ৯০ হাজার আর যদি এক লাখ চাই তাহলে ক্রেতারা বলেন ৬০ থেকে ৭০ হাজার। কোনো কোনো ক্রেতা দাম বেশি দিয়ে কিনে নেন। আবার কিছু ক্রেতা দাম শুনে চলে যান। পশু বিক্রয় করতে না পারলে তাদের অনেক লোকসান গুনতে হবে বলে জানান। এ নিয়ে দুশ্চিন্তায় রয়েছেন তারা।

নড়াইলের পুলিশ সুপার মোসা: সাদিরা খাতুন বলেন, পবিত্র ঈদ-উল-আযহা উপলক্ষে কোরবানির পশুর হাটে নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করতে অস্থায়ী কন্ট্রোলরুম স্থাপন করা হয়েছে। পশুর হাটে চাঁদাবাজিসহ সব ধরনের অপরাধ নিয়ন্ত্রণ ও সাধারণ জনগণ যাতে নির্বিঘেœ কোরবানির জন্য পশু ক্রয় ও বিক্রয় করতে পারে সে জন্য নজরদারি বাড়াতে পুলিশ, ব্যাংক কর্মকর্তা ও ইজারাদারদের সমন্বয়ে অস্থায়ী কন্ট্রোলরুম স্থাপন করা হয়েছে।
এছাড়া গরু ও ছাগল সুস্থ আছে কি না তা যাচাই করার জন্য কন্ট্রোলরুমে পশু ডাক্তার উপস্থিত থাকার বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়েছে। জাল টাকার বিস্তার রোধে জাল টাকা শনাক্তকরণের মেশিন রাখা হয়েছে। পশুরহাটে মানুষের জানমালের নিরাপত্তা, টাকা ছিনতাই রোধ, মলম ও অজ্ঞান পার্টির তৎপরতা নিয়ন্ত্রণের লক্ষে ডিবির টহল টিম থাকবে। এছাড়া সাদা পোশাকে পুলিশ সার্বক্ষণিক নজরদারি করবে।

নড়াইল জেলা প্রাণিসম্পদ অফিসের তথ্য অনুযায়ী জেলায় এবার কোরবানিযোগ্য গবাদি পশু মজুদ আছে ৫৪ হাজার ৪৯০টি। কোরবানির জন্য পশুর চাহিদা রয়েছে ৩২ হাজার ১৪৫টি। অর্থাৎ ২২ হাজার ৭৭৫টি গবাদি পশু উদ্বৃত্ত রয়েছে। এবারের কোরবানিতে নড়াইল জেলায় তিনটি উপজেলা নড়াইল সদর, লোহাগড়া ও কালিয়ায় ৪ হাজার ৫৯৯টি খামারে কৃষকের মজুদ থাকা গবাদি পশুর মধ্যে ষাঁড় রয়েছে ১২ হাজার ৯৫৮টি, বলদ ২ হাজার ৫৭১টি এবং গাভী রয়েছে ৪ হাজার ১৬৯টি। মোট গরুর সংখ্যা ১৯হাজার ৬৯৮টি। এছাড়া ছাগল এবং ভেড়া রয়েছে ৩৫ হাজার ১৯২টি। যার মধ্যে ছাগল ৩৫ হাজার ১০৩টি এবং ৮৯টি ভেড়া রয়েছে।