ঢাকা ০৯:১১ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০২৪, ৪ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
Logo ঈদের আনন্দে প্রবাসীরা কতটুকু হাসি খুশি থাকে Logo ঈদুল আযাহার নামাজ আদায় চকশৈল্যা বাজার ঈদগাহ মাঠে। Logo বিরামপুরে সৌদির সাথে মিল রেখে ১৫টি গ্রামের পরিবারে ঈদুল আজহা উদযাপন Logo শেরপুরে পবিত্র ঈদুল আযহার উপলক্ষে শুভেচ্ছা ও আর্থিক সহায়তা দিলেন ছানুয়ার হোসেন ছানু এমপি Logo “দৈনিক বর্তমান সংবাদের নির্বাহী সম্পাদক ও এশিয়ান টিভি ভালুকা প্রতিনিধি”মো:কামরুল ইসলাম “পবিত্র ঈদুল আযহার শুভেচ্ছা Logo “প্রেসক্লাব ভালুকা “সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম”পবিত্র ঈদুল আযহার শুভেচ্ছা Logo “দৈনিক বর্তমান সংবাদের সহ সম্পাদক “সেরাজুর ইসলাম সিরাজ “পবিত্র ঈদুল আযহার শুভেচ্ছা Logo দৈনিক বর্তমান সংবাদের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক “সুমন মিয়া “পবিত্র ঈদুল আযহার শুভেচ্ছা Logo “দৈনিক বর্তমান সংবাদের প্রকাশক ও সম্পাদক”মামুন হাসান বিএ”পবিত্র ঈদুল আযহার শুভেচ্ছা Logo ঈদ আগাম বুকিং কম চায়ের রাজ্য শ্রীমঙ্গলে

নড়াইলে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী মাশরাফি বলেছেন, এখানে এসেছি যুদ্ধ করতে আরাম করতে আসিনি

উজ্জ্বল রায়
  • আপডেট সময় : ০৯:৫৮:১৭ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২ জানুয়ারী ২০২৪ ৬৭ বার পড়া হয়েছে

উজ্জ্বল রায়, জেলা প্রতিনিধি নড়াইল থেকে/

এখানে এসেছি যুদ্ধ করতে, আরাম করতে আসিনি: মাশরাফি
আসন্ন দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক এবং আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী মাশরাফি বিন মোর্ত্তজা বলেছেন, এখানে এসেছি যুদ্ধ করতে আরাম করতে আসিনি। স্বাধীনতার ৫২ বছরের বেশি সময় পার হয়েছে। এর আগে কাদার রাস্তা ছিল সামান্য কয়টা স্কুল ছিল। এখন অনেক কিছু হয়েছে মাননীয় প্রধামন্ত্রী পদ্মাসেতু করেছেন, মধুমতি সেতু করেছেন। আজ আমরা ভৌগোলিকভাবে আল্লাহর রহমতে একটা ভাল জায়গায় আছি।
মঙ্গলবার (২ জানুয়ারি) বেলা সাড়ে ১১টায় নড়াইল সদর উপজেলার আউড়িয়া ইউনিয়নে পথ সভায় বক্তব্য প্রদানকালে এসব কথা বলেন মাশরাফি।
মাশরাফি বলেন, এটা শুধু একটা নির্বাচন নয় আগামী প্রজন্মের ভবিষৎ নির্ভর করছে ৭ জানুয়ারির এই নির্বাচন। আপনারা কেউ ঘরে বসে থাকবেন না। আপনারা একটু সময় নষ্ট করে পরিবারের সবাইকে নিয়ে ভোট কেন্দ্রে গিয়ে নৌকায় ভোট দিয়ে আসবেন। বিগত ৫ বছর আমি আপনাদের সঙ্গে থেকে সাধ্যমত উন্নয়ন করার চেষ্ঠা করেছি। অনেক মেগা প্রকল্প এখনও চলমান রয়েছে এগুলো যেন থমকে না যায়। আপনাদের দায়িত্ব ৭ জানুয়ারি ৮ জানুয়ারি থেকে আপনাদের এবং আপনার ভবিষ্যৎ প্রজন্মের সকল দায়িত্ব আমি নেব।
তিনি বলেন, এতটুকু কথা দিচ্ছি আপনাদের, আল্লাহ যদি বাচিয়ে রাখে আমার প্রতি আপনারা বিশ্বাস রাখেন। একটি প্রজন্ম আপনাদের ক্ষমা করবে না, আপনারা যদি ভুল করেন। আর একটি মাশরাফি আসবেনা যে অনিয়মের বিরুদ্ধে কথা বলবে। এখানে এসেছি যুদ্ধ করতে আরাম করতে আসিনি। স্বাধীনতার ৫২ বছরের বেশি সময় পার হয়েছে। এর আগে কাদার রাস্তা ছিল সামন্য কয়টা স্কুল ছিল। এখন অনেক কিছু হয়েছে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী পদ্মাসেতু করেছেন, মধুমতি সেতু করেছেন। আজ আমরা ভৌগলিক ভাবে আল্লাহ রহমাতে একটা ভালো জায়গায় আছি।
তিনি আরও বলেন, আজ যদি উন্নয়নের কথা বলতে হয় তাহলে সবচেয়ে বেশী উন্নয়ন হয়েছে আউড়িয়া ইউনিয়নে। আপনার ছেলে মেয়েরা পড়ালেখা করবে, পড়া লেখার বিকল্প কিছু নাই, যদি সে বড় ব্যবসায়ীও হয় তাও তার শিক্ষার প্রয়োজন। হাতেম আলী ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ আপনার বাড়ির আঙ্গিনায়, আইটি পার্ক, ট্রেনিং সেন্টার এ সবই আপনার বাড়ির সামনের মেইন রাস্তায়, এগুলো আপনাদের বুঝতে হবে।
এদিন, সদর উপজেলার আউড়িয়া ইউনিয়নের রগুরাথপুর প্রাইমারি স্কুল মাঠ, ঘোষবাড়ি, দত্তপাড়া বাস স্ট্যান্ড এরপর তিনি চন্ডিবরপুর ইউনিয়নের ফেদী বাজার, চালিতাতলা বাজার ও রতডাঙ্গা বাজারে পথসভা করেন। এ সময় দলীয় নেতা-কর্মী ও অঙ্গ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
উল্লেখ্য, নড়াইল-২ (লোহাগড়া-নড়াইল সদরের একাংশ) আসনে মোট ৮ জন প্রার্থী নির্বাচনী লড়াইয়ে রয়েছেন। এর মধ্যে আওয়ামীলীগের মনোনীত প্রার্থী মাশরাফি বিন মোর্ত্তজা (নৌকা), বাংলাদেশ ওয়ার্কার্স পার্টির শেখ হাফিজুর রহমান (হাতুড়ি), এনপিপি’র মো. মনিরুল ইসলাম (আম), জাতীয় পার্টির ফায়েকুজ্জামান ফিরোজ (লাঙ্গল), গণফ্রন্টের মো. লতিফুর রহমান (মাছ) এবং ইসলামী ঐক্যজোটের মো. মাহবুবুর রহমান (মিনার), স্বতন্ত্র প্রার্থী লায়ন মো. নূর ইসলাম (ঈগল), এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী সৈয়দ ফয়জুল আমির লিটু (ট্রাক) প্রতিকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

ট্যাগস :
Translate »

নড়াইলে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী মাশরাফি বলেছেন, এখানে এসেছি যুদ্ধ করতে আরাম করতে আসিনি

আপডেট সময় : ০৯:৫৮:১৭ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২ জানুয়ারী ২০২৪

উজ্জ্বল রায়, জেলা প্রতিনিধি নড়াইল থেকে/

এখানে এসেছি যুদ্ধ করতে, আরাম করতে আসিনি: মাশরাফি
আসন্ন দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক এবং আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী মাশরাফি বিন মোর্ত্তজা বলেছেন, এখানে এসেছি যুদ্ধ করতে আরাম করতে আসিনি। স্বাধীনতার ৫২ বছরের বেশি সময় পার হয়েছে। এর আগে কাদার রাস্তা ছিল সামান্য কয়টা স্কুল ছিল। এখন অনেক কিছু হয়েছে মাননীয় প্রধামন্ত্রী পদ্মাসেতু করেছেন, মধুমতি সেতু করেছেন। আজ আমরা ভৌগোলিকভাবে আল্লাহর রহমতে একটা ভাল জায়গায় আছি।
মঙ্গলবার (২ জানুয়ারি) বেলা সাড়ে ১১টায় নড়াইল সদর উপজেলার আউড়িয়া ইউনিয়নে পথ সভায় বক্তব্য প্রদানকালে এসব কথা বলেন মাশরাফি।
মাশরাফি বলেন, এটা শুধু একটা নির্বাচন নয় আগামী প্রজন্মের ভবিষৎ নির্ভর করছে ৭ জানুয়ারির এই নির্বাচন। আপনারা কেউ ঘরে বসে থাকবেন না। আপনারা একটু সময় নষ্ট করে পরিবারের সবাইকে নিয়ে ভোট কেন্দ্রে গিয়ে নৌকায় ভোট দিয়ে আসবেন। বিগত ৫ বছর আমি আপনাদের সঙ্গে থেকে সাধ্যমত উন্নয়ন করার চেষ্ঠা করেছি। অনেক মেগা প্রকল্প এখনও চলমান রয়েছে এগুলো যেন থমকে না যায়। আপনাদের দায়িত্ব ৭ জানুয়ারি ৮ জানুয়ারি থেকে আপনাদের এবং আপনার ভবিষ্যৎ প্রজন্মের সকল দায়িত্ব আমি নেব।
তিনি বলেন, এতটুকু কথা দিচ্ছি আপনাদের, আল্লাহ যদি বাচিয়ে রাখে আমার প্রতি আপনারা বিশ্বাস রাখেন। একটি প্রজন্ম আপনাদের ক্ষমা করবে না, আপনারা যদি ভুল করেন। আর একটি মাশরাফি আসবেনা যে অনিয়মের বিরুদ্ধে কথা বলবে। এখানে এসেছি যুদ্ধ করতে আরাম করতে আসিনি। স্বাধীনতার ৫২ বছরের বেশি সময় পার হয়েছে। এর আগে কাদার রাস্তা ছিল সামন্য কয়টা স্কুল ছিল। এখন অনেক কিছু হয়েছে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী পদ্মাসেতু করেছেন, মধুমতি সেতু করেছেন। আজ আমরা ভৌগলিক ভাবে আল্লাহ রহমাতে একটা ভালো জায়গায় আছি।
তিনি আরও বলেন, আজ যদি উন্নয়নের কথা বলতে হয় তাহলে সবচেয়ে বেশী উন্নয়ন হয়েছে আউড়িয়া ইউনিয়নে। আপনার ছেলে মেয়েরা পড়ালেখা করবে, পড়া লেখার বিকল্প কিছু নাই, যদি সে বড় ব্যবসায়ীও হয় তাও তার শিক্ষার প্রয়োজন। হাতেম আলী ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ আপনার বাড়ির আঙ্গিনায়, আইটি পার্ক, ট্রেনিং সেন্টার এ সবই আপনার বাড়ির সামনের মেইন রাস্তায়, এগুলো আপনাদের বুঝতে হবে।
এদিন, সদর উপজেলার আউড়িয়া ইউনিয়নের রগুরাথপুর প্রাইমারি স্কুল মাঠ, ঘোষবাড়ি, দত্তপাড়া বাস স্ট্যান্ড এরপর তিনি চন্ডিবরপুর ইউনিয়নের ফেদী বাজার, চালিতাতলা বাজার ও রতডাঙ্গা বাজারে পথসভা করেন। এ সময় দলীয় নেতা-কর্মী ও অঙ্গ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
উল্লেখ্য, নড়াইল-২ (লোহাগড়া-নড়াইল সদরের একাংশ) আসনে মোট ৮ জন প্রার্থী নির্বাচনী লড়াইয়ে রয়েছেন। এর মধ্যে আওয়ামীলীগের মনোনীত প্রার্থী মাশরাফি বিন মোর্ত্তজা (নৌকা), বাংলাদেশ ওয়ার্কার্স পার্টির শেখ হাফিজুর রহমান (হাতুড়ি), এনপিপি’র মো. মনিরুল ইসলাম (আম), জাতীয় পার্টির ফায়েকুজ্জামান ফিরোজ (লাঙ্গল), গণফ্রন্টের মো. লতিফুর রহমান (মাছ) এবং ইসলামী ঐক্যজোটের মো. মাহবুবুর রহমান (মিনার), স্বতন্ত্র প্রার্থী লায়ন মো. নূর ইসলাম (ঈগল), এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী সৈয়দ ফয়জুল আমির লিটু (ট্রাক) প্রতিকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।