ঢাকা ১২:০৪ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪, ১১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
Logo যুব মাতৃ সেবক সামাজিক সংগঠন শিবপুর বটতলী বাজার ফেনী Logo শ্রীমঙ্গলে গৃহপালিত কুকুরের সঙ্গে বুনো শুকরের বন্ধুত্ব Logo শাহজাদপুরে ৬ দিনব্যাপী কৃষি মেলার শুভ উদ্বোধন Logo বিরামপুরে ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক কৃষকের মাঝে বিনামূল্যে বীজ ও সার বিতরন Logo বিরামপুরের সর্প দর্শন বিষয়ক সচেতনতা মূলক সেমিনার অনুষ্ঠিত Logo পলাশবাড়ীতে বিআরডিবি সুফলভুগি সদস্যদের তিন দিনব্যাপী দক্ষতা উন্নয়ন প্রশিক্ষণের শুভ উদ্বোধন Logo ধর্মপাশায় ভুয়া প্রকল্পের বরাদ্দ দেখিয়ে 10 টন চাল আত্মসাৎ এর অভিযোগ Logo কুড়িগ্রামের ভোগ ডাঙ্গায় ওষুধ বাকি না দেওয়ায় ব্যবসায়ীকে পিটিয়ে আহত করার অভিযোগ সেনা সদস্যের বিরুদ্ধে Logo বাংলাদেশের সকল অর্জন আওয়ামী লীগের হাত ধরে এসেছে: এমপি আলহাজ্ব এস এম আল মামুন Logo শ্রীপুরে বিয়ে ভেঙে যাওয়ায় ‘আত্মহত্যা করলেন যুবক

পলাশবাড়ীতে অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে নিয়োগ বানিজ্যের অভিযোগে স্থগিত নিয়োগ পরীক্ষা

শহীদুল ইসলাম শহীদ
  • আপডেট সময় : ০৯:৩৩:৩৯ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ ৬২ বার পড়া হয়েছে

শহীদুল ইসলাম শহীদ,
স্টাফ রিপোর্টার:

গাইবান্ধা জেলার পলাশবাড়ী উপজেলার পশ্চিম মির্জাপুর ফাজিল ডিগ্রী মাদ্রাসার অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে নিয়োগ বানিজ্যের অভিযোগে নিয়োগ পরীক্ষা স্থগিত করেছে নিয়োগ কমিটি।

পৌর শহরের পলাশবাড়ী সিনিয়র ফাজিল ডিগ্রী মাদ্রাসা কেন্দ্রে নিয়োগ পরীক্ষা গ্রহণের এক ঘন্টা আগে এই নিয়োগ পরীক্ষা স্থগিত করে নিয়োগ কমিটি।

তথ্যানুসন্ধানে প্রকাশ,পশ্চিম মির্জাপুর ফাজিল ডিগ্রী মাদ্রাসার বিভিন্ন পদে জনবল নিয়োগের জন্য পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি আহবান করেন অধ্যক্ষ।বিভিন্ন পদের বিপরীতে প্রায় ৫০ জন প্রার্থী আবেদন করেন।

মাদ্রাসার অধ্যক্ষ,আ ন ম জাহিদুর রহমান চতুর্থ শ্রেণীর কর্মচারী (পিয়ন) পদে জনৈক প্রার্থী জেনারুল ইসলাম ঠান্ডাকে নিয়োগ দেয়ার কথা বলে মোট ৬ লক্ষ টাকা ও একই পদে নিয়োগ দেয়ার কথা বলে জনৈক প্রার্থী শহিদুল ইসলামের নিকট ৪ লক্ষ টাকা উৎকোচ (ঘুষ) গ্রহণ করেন।

এদিকে পরীক্ষার দিন ১৬ ফেব্রুয়ারী শুক্রবার সকালে প্রার্থীরা টাকা ফেরত চেয়ে অধ্যক্ষ জাহিদুর রহমানকে পরীক্ষা কেন্দ্রে আটক করে রাখে।

খবর পেয়ে পলাশবাড়ী পৌর মেয়র গোলাম সারোয়ার প্রধান বিপ্লব ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে বিষয়টি নিস্পত্তি করে নিয়োগ পরীক্ষা চালানোর জন্য অনুরোধ জানান। এসময় অধ্যক্ষ জাহিদুর রহমান আগামী ৭ দিনের মধ্যে নিয়োগের সমুদয় টাকা মেয়রের হাতে ফেরত দিবেন বলে প্রতিশ্রুতি প্রদান করলে পরিস্থিতি শান্ত হয়।

ওই মাদ্রাসার গভর্নিং বডির সভাপতি ও পলাশবাড়ী উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আলহাজ্ব একেএম মোকছেদ চৌধুরী বিদুৎ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে নিয়োগের টাকা ৭ দিনের মধ্যে ফেরত দিতে অধ্যক্ষকে নির্দেশ প্রদান করেন।

পুরো ঘটনাটি বাংলাদেশ মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডের প্রতিনিধি অবলোকন করেন। পরে তিনি সাংবাদিকদের জানান,যেহেতু অধ্যক্ষ নিয়োগ বাণিজ্যের সাথে জড়িত রয়েছেন বলে অভিযোগের সত্যতা পাওয়া গেছে~সেহেতু আজকের নিয়োগ পরীক্ষার যাবতীয় কার্যক্রম স্থগিত করা হলো।

এদিকে,পলাশবাড়ীর ঐতিহ্যবাহী পশ্চিম মির্জাপুর দ্বী মুখী ফাজিল ডিগ্রী মাদ্রাসার অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে নিয়োগ বাণিজ্যের অভিযোগ তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সংশ্লিষ্ট উর্ধতন কর্তৃপক্ষের জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন এলাকাবাসী।।

ট্যাগস :
Translate »

পলাশবাড়ীতে অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে নিয়োগ বানিজ্যের অভিযোগে স্থগিত নিয়োগ পরীক্ষা

আপডেট সময় : ০৯:৩৩:৩৯ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

শহীদুল ইসলাম শহীদ,
স্টাফ রিপোর্টার:

গাইবান্ধা জেলার পলাশবাড়ী উপজেলার পশ্চিম মির্জাপুর ফাজিল ডিগ্রী মাদ্রাসার অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে নিয়োগ বানিজ্যের অভিযোগে নিয়োগ পরীক্ষা স্থগিত করেছে নিয়োগ কমিটি।

পৌর শহরের পলাশবাড়ী সিনিয়র ফাজিল ডিগ্রী মাদ্রাসা কেন্দ্রে নিয়োগ পরীক্ষা গ্রহণের এক ঘন্টা আগে এই নিয়োগ পরীক্ষা স্থগিত করে নিয়োগ কমিটি।

তথ্যানুসন্ধানে প্রকাশ,পশ্চিম মির্জাপুর ফাজিল ডিগ্রী মাদ্রাসার বিভিন্ন পদে জনবল নিয়োগের জন্য পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি আহবান করেন অধ্যক্ষ।বিভিন্ন পদের বিপরীতে প্রায় ৫০ জন প্রার্থী আবেদন করেন।

মাদ্রাসার অধ্যক্ষ,আ ন ম জাহিদুর রহমান চতুর্থ শ্রেণীর কর্মচারী (পিয়ন) পদে জনৈক প্রার্থী জেনারুল ইসলাম ঠান্ডাকে নিয়োগ দেয়ার কথা বলে মোট ৬ লক্ষ টাকা ও একই পদে নিয়োগ দেয়ার কথা বলে জনৈক প্রার্থী শহিদুল ইসলামের নিকট ৪ লক্ষ টাকা উৎকোচ (ঘুষ) গ্রহণ করেন।

এদিকে পরীক্ষার দিন ১৬ ফেব্রুয়ারী শুক্রবার সকালে প্রার্থীরা টাকা ফেরত চেয়ে অধ্যক্ষ জাহিদুর রহমানকে পরীক্ষা কেন্দ্রে আটক করে রাখে।

খবর পেয়ে পলাশবাড়ী পৌর মেয়র গোলাম সারোয়ার প্রধান বিপ্লব ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে বিষয়টি নিস্পত্তি করে নিয়োগ পরীক্ষা চালানোর জন্য অনুরোধ জানান। এসময় অধ্যক্ষ জাহিদুর রহমান আগামী ৭ দিনের মধ্যে নিয়োগের সমুদয় টাকা মেয়রের হাতে ফেরত দিবেন বলে প্রতিশ্রুতি প্রদান করলে পরিস্থিতি শান্ত হয়।

ওই মাদ্রাসার গভর্নিং বডির সভাপতি ও পলাশবাড়ী উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আলহাজ্ব একেএম মোকছেদ চৌধুরী বিদুৎ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে নিয়োগের টাকা ৭ দিনের মধ্যে ফেরত দিতে অধ্যক্ষকে নির্দেশ প্রদান করেন।

পুরো ঘটনাটি বাংলাদেশ মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডের প্রতিনিধি অবলোকন করেন। পরে তিনি সাংবাদিকদের জানান,যেহেতু অধ্যক্ষ নিয়োগ বাণিজ্যের সাথে জড়িত রয়েছেন বলে অভিযোগের সত্যতা পাওয়া গেছে~সেহেতু আজকের নিয়োগ পরীক্ষার যাবতীয় কার্যক্রম স্থগিত করা হলো।

এদিকে,পলাশবাড়ীর ঐতিহ্যবাহী পশ্চিম মির্জাপুর দ্বী মুখী ফাজিল ডিগ্রী মাদ্রাসার অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে নিয়োগ বাণিজ্যের অভিযোগ তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সংশ্লিষ্ট উর্ধতন কর্তৃপক্ষের জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন এলাকাবাসী।।