ঢাকা ০৮:৩৪ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০২৪, ৪ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
Logo ঈদের আনন্দে প্রবাসীরা কতটুকু হাসি খুশি থাকে Logo ঈদুল আযাহার নামাজ আদায় চকশৈল্যা বাজার ঈদগাহ মাঠে। Logo বিরামপুরে সৌদির সাথে মিল রেখে ১৫টি গ্রামের পরিবারে ঈদুল আজহা উদযাপন Logo শেরপুরে পবিত্র ঈদুল আযহার উপলক্ষে শুভেচ্ছা ও আর্থিক সহায়তা দিলেন ছানুয়ার হোসেন ছানু এমপি Logo “দৈনিক বর্তমান সংবাদের নির্বাহী সম্পাদক ও এশিয়ান টিভি ভালুকা প্রতিনিধি”মো:কামরুল ইসলাম “পবিত্র ঈদুল আযহার শুভেচ্ছা Logo “প্রেসক্লাব ভালুকা “সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম”পবিত্র ঈদুল আযহার শুভেচ্ছা Logo “দৈনিক বর্তমান সংবাদের সহ সম্পাদক “সেরাজুর ইসলাম সিরাজ “পবিত্র ঈদুল আযহার শুভেচ্ছা Logo দৈনিক বর্তমান সংবাদের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক “সুমন মিয়া “পবিত্র ঈদুল আযহার শুভেচ্ছা Logo “দৈনিক বর্তমান সংবাদের প্রকাশক ও সম্পাদক”মামুন হাসান বিএ”পবিত্র ঈদুল আযহার শুভেচ্ছা Logo ঈদ আগাম বুকিং কম চায়ের রাজ্য শ্রীমঙ্গলে

ফুফুকে পিটিয়ে ইমামতি হারালেন এবং হাজতে গেলেন

আমীনুল ইসলাম স্টাফ রিপোর্টার: 
  • আপডেট সময় : ০৩:৫২:২৩ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১১ জুন ২০২৪ ২২ বার পড়া হয়েছে

আমীনুল ইসলাম স্টাফ রিপোর্টার:

কুড়িগ্রাম জেলার রাজারহাট উপজেলার নাজিমখান ইউনিয়নের মনারকুটি তেলিপাড়া গ্রামের জমিজমার জের ধরে পিতার খালাতো বোনকে পিটালো রাজারহাট ব্যাপারী পাড়া মসজিদের ইমাম আব্দুর রহমান। পরে আব্দুর রহমানের ফুফুর ১ম সন্তান রোস্তম আলী বাদী হয়ে রাজারহাট থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। যাহার মামলা নং ৩/২৪ । সুযোগ বুঝে ইমাম আব্দুর রহমান কুড়িগ্রাম আদালতে অগ্রিম জামিন নিতে গেলে বিজ্ঞ আদালত তাকে শ্রীঘরে পাঠিয়ে দেয়।

মামলা সূত্রে জানা যায় : আব্দুর রহমান গং এর সাথে দীর্ঘদিন যাবত রোস্তম আলীর পরিবারের জমিজমা নিয়ে ঝগড়া, বিবাদ ও মনমালিন্য চলিয়া আসিতেছে। গত ৩/৬/২৪ ইং আনুমানিক দুপুর ২. ৩০ ঘটিকায় আব্দুর রহমান গং রোস্তম আলীর পরিবারের উপর দেশীও অস্ত্র নিয়ে হামলা করে। এতে রোস্তম আলীর মাথা কোপ দেয় আব্দুর রহমান। সেই সময় রোস্তম আলীর ছোট ভাই শফিকুল ইসলাম সাজু এগিয়ে এলে তাকেও মাথায় কোপ দিয়ে আহত করে আব্দুর রহমান গং। পরে সন্তানের বিপদ দেখে মা রহিমা বেগম এগিয়ে এলে তাকেও এলোপাতাড়ি মারপিট করে আহত করে এবং ছুরি দিয়ে মাথায় কোপ দিলে সেটা ডান হাতের কব্জিতে লেগে কেটে রক্তাত জখম হয়।পরে এলাকাবাসী রহিমা বেগম সহ তার ২ সন্তানকে উদ্ধার করে রাজারহাট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করান। তারা ৭ দিন যাবত চিকিৎসাধীন আছে।

অপর পক্ষের আব্দুল বাতেনের ২ পুত্র এবং উক্ত মামলার ২নং আসামি আব্দুর রহিম মামুন এসে হাসপাতালে ভর্তি হয়, তার শরীরে তেমন কোন আহতের দাগ না থাকলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে রিলিজ প্রদান করে। পরে তারা এই রিলিজ এর কাগজ নিয়ে তারা রাজারহাট থানায় মামলা করেন বলে জানা যায়।

এই বিষয়ে ভিকটিম রহিমা বেগম বলেন – আমার ভাতিজা আমার বাপদাদার জায়গা সহ ক্রয়কৃত ৫ শতক জমি জোরজবরদস্তি করে দখল করতে যায়। এই জমির দলিল আমার নামে । আমি ও আমার সন্তানেরা দীর্ঘদিন যাবত ভোগদখল করে আসিতেছি কিন্তু ভুল বসত ক্রয়কৃত ৫ শতাংশ জমির আরএস রেকর্ড এ ১১৬ খতিয়ানে আব্দুল বাতেন নাম চলে আসে।
আমি সংশোধনের জন্য আবার কুড়িগ্রাম বিজ্ঞ সহকারী জজ আদাল মামলা করি। যাহার মামলা নং – ৩৮/২৪। সেই মামলা চলমান আছে। কিন্তু বাতেন ও তার সন্তানেরা ক্ষমতা দেখিয়ে বার বার আমার জায়গা দখল করার চেষ্টা করে আসতেছে। আমরা এর সুষ্ঠু বিচার চাই।

এই বিষয়ে অভিযুক্ত ব্যক্তিদের পক্ষে ২ নং আসামি আব্দুর রহিম মামুনকে মুটোফোনে ফোন দিলে তিনি সাংবাদিকে বলেন – জমি আমাদের, কোন মূলে জমি তাদের এবং জমির দলিল নম্বর জানতে চাইলে তিনি সাংবাদিকদের আরো বলেন সেটা আমার ভাই জানে।আমার ভাই এখন জেল হাজতে আছে বলে ফোন কেটে দেয়।

এই বিষয়ে বাদী রোস্তম আলী সাংবাদিকদের বলেন – কোন ক্ষমতা বলে আব্দুল বাতেন পুত্র আব্দুর রহমান গং বার বার আমার মায়ের জায়গা দখল করতে চায় আমার জানা নেই । জমির দলিল সব আমার মায়ের নামে। যার দলিল নং – ৪৮৯২, তারিখ – ১২-৩-১৯৮১ ইং। এটা আমার মায়ের বাপদাদার পৌত্রিক সম্পত্তি ও ৫ শতক খরিদা সম্পত্তি মোট – ২২ শতাংশ জমি আমরা ভোগদখল করছি। ১৭ শতক জমি আমার মায়ের নামে আরএস ২৭২/২৭ত খতিয়ানে রেকোড ভুক্ত হয় আর ৫ শতক জমি ভুল বাতেন গংঙ্গের নামে চলে আসে। এই রেকোড সংশোধনের মামলা আমার মা দিয়েছে, যার কাগজ আপনারা হাতে পেয়েছেন। আমার মা সহ আমাকে ও আমার ভাইকে তারা অন্যায় ভাবে পিটালো আমি বিজ্ঞ আদালতে তার বিচার চাই।

এই বিষয়ে রাজারহাট থানার অফিসার ইনচার্জ মোস্তাফিজুর রহমান পিপিএম সাংবাদিকদের বলেন – দুই পক্ষের দুইটি মামলা রুজু হয়েছে। মামলা দুটির তদন্তধীন আছে। তদন্ত শেষে পুলিশ প্রতিবেদন বিজ্ঞ আদালতে প্রেরন করা হবে।

ট্যাগস :
Translate »

ফুফুকে পিটিয়ে ইমামতি হারালেন এবং হাজতে গেলেন

আপডেট সময় : ০৩:৫২:২৩ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১১ জুন ২০২৪

আমীনুল ইসলাম স্টাফ রিপোর্টার:

কুড়িগ্রাম জেলার রাজারহাট উপজেলার নাজিমখান ইউনিয়নের মনারকুটি তেলিপাড়া গ্রামের জমিজমার জের ধরে পিতার খালাতো বোনকে পিটালো রাজারহাট ব্যাপারী পাড়া মসজিদের ইমাম আব্দুর রহমান। পরে আব্দুর রহমানের ফুফুর ১ম সন্তান রোস্তম আলী বাদী হয়ে রাজারহাট থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। যাহার মামলা নং ৩/২৪ । সুযোগ বুঝে ইমাম আব্দুর রহমান কুড়িগ্রাম আদালতে অগ্রিম জামিন নিতে গেলে বিজ্ঞ আদালত তাকে শ্রীঘরে পাঠিয়ে দেয়।

মামলা সূত্রে জানা যায় : আব্দুর রহমান গং এর সাথে দীর্ঘদিন যাবত রোস্তম আলীর পরিবারের জমিজমা নিয়ে ঝগড়া, বিবাদ ও মনমালিন্য চলিয়া আসিতেছে। গত ৩/৬/২৪ ইং আনুমানিক দুপুর ২. ৩০ ঘটিকায় আব্দুর রহমান গং রোস্তম আলীর পরিবারের উপর দেশীও অস্ত্র নিয়ে হামলা করে। এতে রোস্তম আলীর মাথা কোপ দেয় আব্দুর রহমান। সেই সময় রোস্তম আলীর ছোট ভাই শফিকুল ইসলাম সাজু এগিয়ে এলে তাকেও মাথায় কোপ দিয়ে আহত করে আব্দুর রহমান গং। পরে সন্তানের বিপদ দেখে মা রহিমা বেগম এগিয়ে এলে তাকেও এলোপাতাড়ি মারপিট করে আহত করে এবং ছুরি দিয়ে মাথায় কোপ দিলে সেটা ডান হাতের কব্জিতে লেগে কেটে রক্তাত জখম হয়।পরে এলাকাবাসী রহিমা বেগম সহ তার ২ সন্তানকে উদ্ধার করে রাজারহাট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করান। তারা ৭ দিন যাবত চিকিৎসাধীন আছে।

অপর পক্ষের আব্দুল বাতেনের ২ পুত্র এবং উক্ত মামলার ২নং আসামি আব্দুর রহিম মামুন এসে হাসপাতালে ভর্তি হয়, তার শরীরে তেমন কোন আহতের দাগ না থাকলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে রিলিজ প্রদান করে। পরে তারা এই রিলিজ এর কাগজ নিয়ে তারা রাজারহাট থানায় মামলা করেন বলে জানা যায়।

এই বিষয়ে ভিকটিম রহিমা বেগম বলেন – আমার ভাতিজা আমার বাপদাদার জায়গা সহ ক্রয়কৃত ৫ শতক জমি জোরজবরদস্তি করে দখল করতে যায়। এই জমির দলিল আমার নামে । আমি ও আমার সন্তানেরা দীর্ঘদিন যাবত ভোগদখল করে আসিতেছি কিন্তু ভুল বসত ক্রয়কৃত ৫ শতাংশ জমির আরএস রেকর্ড এ ১১৬ খতিয়ানে আব্দুল বাতেন নাম চলে আসে।
আমি সংশোধনের জন্য আবার কুড়িগ্রাম বিজ্ঞ সহকারী জজ আদাল মামলা করি। যাহার মামলা নং – ৩৮/২৪। সেই মামলা চলমান আছে। কিন্তু বাতেন ও তার সন্তানেরা ক্ষমতা দেখিয়ে বার বার আমার জায়গা দখল করার চেষ্টা করে আসতেছে। আমরা এর সুষ্ঠু বিচার চাই।

এই বিষয়ে অভিযুক্ত ব্যক্তিদের পক্ষে ২ নং আসামি আব্দুর রহিম মামুনকে মুটোফোনে ফোন দিলে তিনি সাংবাদিকে বলেন – জমি আমাদের, কোন মূলে জমি তাদের এবং জমির দলিল নম্বর জানতে চাইলে তিনি সাংবাদিকদের আরো বলেন সেটা আমার ভাই জানে।আমার ভাই এখন জেল হাজতে আছে বলে ফোন কেটে দেয়।

এই বিষয়ে বাদী রোস্তম আলী সাংবাদিকদের বলেন – কোন ক্ষমতা বলে আব্দুল বাতেন পুত্র আব্দুর রহমান গং বার বার আমার মায়ের জায়গা দখল করতে চায় আমার জানা নেই । জমির দলিল সব আমার মায়ের নামে। যার দলিল নং – ৪৮৯২, তারিখ – ১২-৩-১৯৮১ ইং। এটা আমার মায়ের বাপদাদার পৌত্রিক সম্পত্তি ও ৫ শতক খরিদা সম্পত্তি মোট – ২২ শতাংশ জমি আমরা ভোগদখল করছি। ১৭ শতক জমি আমার মায়ের নামে আরএস ২৭২/২৭ত খতিয়ানে রেকোড ভুক্ত হয় আর ৫ শতক জমি ভুল বাতেন গংঙ্গের নামে চলে আসে। এই রেকোড সংশোধনের মামলা আমার মা দিয়েছে, যার কাগজ আপনারা হাতে পেয়েছেন। আমার মা সহ আমাকে ও আমার ভাইকে তারা অন্যায় ভাবে পিটালো আমি বিজ্ঞ আদালতে তার বিচার চাই।

এই বিষয়ে রাজারহাট থানার অফিসার ইনচার্জ মোস্তাফিজুর রহমান পিপিএম সাংবাদিকদের বলেন – দুই পক্ষের দুইটি মামলা রুজু হয়েছে। মামলা দুটির তদন্তধীন আছে। তদন্ত শেষে পুলিশ প্রতিবেদন বিজ্ঞ আদালতে প্রেরন করা হবে।