ঢাকা ০৭:৩৯ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪, ৩ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
Logo বিরামপুরে সৌদির সাথে মিল রেখে ১৫টি গ্রামের পরিবারে ঈদুল আজহা উদযাপন Logo শেরপুরে পবিত্র ঈদুল আযহার উপলক্ষে শুভেচ্ছা ও আর্থিক সহায়তা দিলেন ছানুয়ার হোসেন ছানু এমপি Logo “দৈনিক বর্তমান সংবাদের নির্বাহী সম্পাদক ও এশিয়ান টিভি ভালুকা প্রতিনিধি”মো:কামরুল ইসলাম “পবিত্র ঈদুল আযহার শুভেচ্ছা Logo “প্রেসক্লাব ভালুকা “সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম”পবিত্র ঈদুল আযহার শুভেচ্ছা Logo “দৈনিক বর্তমান সংবাদের সহ সম্পাদক “সেরাজুর ইসলাম সিরাজ “পবিত্র ঈদুল আযহার শুভেচ্ছা Logo দৈনিক বর্তমান সংবাদের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক “সুমন মিয়া “পবিত্র ঈদুল আযহার শুভেচ্ছা Logo “দৈনিক বর্তমান সংবাদের প্রকাশক ও সম্পাদক”মামুন হাসান বিএ”পবিত্র ঈদুল আযহার শুভেচ্ছা Logo ঈদ আগাম বুকিং কম চায়ের রাজ্য শ্রীমঙ্গলে Logo বিরামপুরে সৌদির সাথে মিল রেখে ১৫টি গ্রামের পরিবারে ঈদুল আজহা উদযাপন Logo শাহজাদপুর উপজেলা কৃষকলীগ সাধারণ সম্পাদকের পবিত্র ঈদুল আযহার শুভেচ্ছা।

বিরামপুরে বেড়েছে সরিষার চাষ

ইব্রাহীম মিঞা, বিরামপুরন দিনাজপুর
  • আপডেট সময় : ০৮:৩৭:০২ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৯ জানুয়ারী ২০২৪ ৬৫ বার পড়া হয়েছে

মোঃ ইব্রাহীম মিঞা, বিরামপুর (দিনাজপুর) প্রতিনিধিঃ

উত্তরের জনপদ দিনাজপুরের বিরামপুরে মাঠে মাঠে হলুদের সমাহার, প্রকৃতি সেজেছে হলুদ সাজে, প্রাণ জুড়িয়ে যাচ্ছে প্রকৃতি প্রেমিদের। মাঠে-ঘাটে, গ্রাম-গঞ্জে আর রাস্তায় সরিষার ফুলের সুভাষ ছড়াচ্ছে, মুগ্ধ হচ্ছে পথচারীরা।
দেশে ভেষজ তেলের চাহিদার তুলনায় উৎপাদন কম। এসব ভেষজ তেল আমদানি করতে হয় বেশির ভাগ দেশের বাহির থেকে। বাহির থেকে আমদানিকৃত তেলের মূল্য বৃদ্ধি দিন দিন বেড়েই চলছে।দেশি বাজারে সয়াবিন, সরিষা, পামেলসহ বিভিন্ন প্রকার তেলের দাম বৃদ্ধি পাওয়ায় তেলের দাম স্বাভাবিক রাখতে এবং চাহিদা মেটাতে দিনাজপুরের বিরামপুর উপজেলায় বেড়েছে সরিষার চাষ।আমন ধান কাটাই- মাড়াইয়ের পর জমি ৩ মাস ফেলে না রেখে বাড়তি আয় করতে একই জমিতে সরিষা চাষে ঝুঁকছেন এখানকার কৃষকরা। কৃষকদের সরিষা চাষে উৎসাহিত করতে বিনামূল্যে সার ও বীজ দেয়া হয়েছে বলে জানান উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা ফিরোজ আহমেদ।
বিরামপুর উপজেলার প্রতিটি ইউনিয়নে আশানুরূপ সরিষার আবাদ হয়েছে। উপজেলার জোতবানী ইউনিয়নের একইর মঙ্গলপুর গ্রামের কৃষক হাফিজুল ইসলাম বলেন, এক বিঘা জমিতে সরিষা চাষ করতে খরচ হয় তিন হাজার থেকে চার হাজার টাকা। প্রতি বিঘায় সরিষা উৎপাদন হয়ে থাকে ৬ থেকে ৭ মণ। সরিষা চাষে উপযোগী আবওহায়া ভালো থাকায় ভালো ফলনের আশা করছেন তিনি। তবে উৎপাদন খরচ কম ও দাম ভালো পাওয়ায় সরিষা চাষে ঝুঁকছেন এসব এলাকার কৃষকেরা।
বিরামপুর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা ফিরোজ আহমেদ বলেন,কৃষকদের সরিষা চাষে উৎসাহিত করতে কৃষি অফিস থেকে মোট ৩ হাজার ৭০০ জন কৃষককে বিনামূল্যে সরিষার বীজ ও সার প্রদান করা হয়েছে।অন্যদিকে অন্য ফসলের তুলনায় সল্প সময়ে লাভজনক হওয়ায় কৃষকেরা দিন দিন সরিষা চাষের দিকে ঝুঁকছেন।বিরামপুর উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকতা জাহিদুল ইসলাম ইলিয়াস বলেন,চলতি মৌসুমে বিরামপুর উপজেলায় ১ হাজার ৭৬০ হেক্টর জমিতে সরিষা আবাদের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে। তবে ১ হাজার ৮৪৫ হেক্টর জমিতে সরিষার চাষ করা হয়েছে, যা লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ৮৫ হেক্টর জমিতে বেশি আবাদ করা হয়েছে।

ট্যাগস :
Translate »

বিরামপুরে বেড়েছে সরিষার চাষ

আপডেট সময় : ০৮:৩৭:০২ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৯ জানুয়ারী ২০২৪

মোঃ ইব্রাহীম মিঞা, বিরামপুর (দিনাজপুর) প্রতিনিধিঃ

উত্তরের জনপদ দিনাজপুরের বিরামপুরে মাঠে মাঠে হলুদের সমাহার, প্রকৃতি সেজেছে হলুদ সাজে, প্রাণ জুড়িয়ে যাচ্ছে প্রকৃতি প্রেমিদের। মাঠে-ঘাটে, গ্রাম-গঞ্জে আর রাস্তায় সরিষার ফুলের সুভাষ ছড়াচ্ছে, মুগ্ধ হচ্ছে পথচারীরা।
দেশে ভেষজ তেলের চাহিদার তুলনায় উৎপাদন কম। এসব ভেষজ তেল আমদানি করতে হয় বেশির ভাগ দেশের বাহির থেকে। বাহির থেকে আমদানিকৃত তেলের মূল্য বৃদ্ধি দিন দিন বেড়েই চলছে।দেশি বাজারে সয়াবিন, সরিষা, পামেলসহ বিভিন্ন প্রকার তেলের দাম বৃদ্ধি পাওয়ায় তেলের দাম স্বাভাবিক রাখতে এবং চাহিদা মেটাতে দিনাজপুরের বিরামপুর উপজেলায় বেড়েছে সরিষার চাষ।আমন ধান কাটাই- মাড়াইয়ের পর জমি ৩ মাস ফেলে না রেখে বাড়তি আয় করতে একই জমিতে সরিষা চাষে ঝুঁকছেন এখানকার কৃষকরা। কৃষকদের সরিষা চাষে উৎসাহিত করতে বিনামূল্যে সার ও বীজ দেয়া হয়েছে বলে জানান উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা ফিরোজ আহমেদ।
বিরামপুর উপজেলার প্রতিটি ইউনিয়নে আশানুরূপ সরিষার আবাদ হয়েছে। উপজেলার জোতবানী ইউনিয়নের একইর মঙ্গলপুর গ্রামের কৃষক হাফিজুল ইসলাম বলেন, এক বিঘা জমিতে সরিষা চাষ করতে খরচ হয় তিন হাজার থেকে চার হাজার টাকা। প্রতি বিঘায় সরিষা উৎপাদন হয়ে থাকে ৬ থেকে ৭ মণ। সরিষা চাষে উপযোগী আবওহায়া ভালো থাকায় ভালো ফলনের আশা করছেন তিনি। তবে উৎপাদন খরচ কম ও দাম ভালো পাওয়ায় সরিষা চাষে ঝুঁকছেন এসব এলাকার কৃষকেরা।
বিরামপুর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা ফিরোজ আহমেদ বলেন,কৃষকদের সরিষা চাষে উৎসাহিত করতে কৃষি অফিস থেকে মোট ৩ হাজার ৭০০ জন কৃষককে বিনামূল্যে সরিষার বীজ ও সার প্রদান করা হয়েছে।অন্যদিকে অন্য ফসলের তুলনায় সল্প সময়ে লাভজনক হওয়ায় কৃষকেরা দিন দিন সরিষা চাষের দিকে ঝুঁকছেন।বিরামপুর উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকতা জাহিদুল ইসলাম ইলিয়াস বলেন,চলতি মৌসুমে বিরামপুর উপজেলায় ১ হাজার ৭৬০ হেক্টর জমিতে সরিষা আবাদের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে। তবে ১ হাজার ৮৪৫ হেক্টর জমিতে সরিষার চাষ করা হয়েছে, যা লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ৮৫ হেক্টর জমিতে বেশি আবাদ করা হয়েছে।